Rampurhat Incident: ‘নাটের গুরু আনারুল’, বগটুইয়ে আগুনে পুড়ে মৃত্যুতে মমতার মুখে কেন এই তৃণমূল নেতার নাম?

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: রামপুরহাটের (Rampurhat)বগটুই গ্রামের রাতের আঁধারে আগুন লাগিয়ে ৮ জনকে খুনের ঘটনায় ‘নাটের গুরু’ আনারুল হোসেন। বৃহস্পতিবার বগটুই গ্রামে গিয়ে নিহতদের পরিবারের পাশে দাড়িয়ে ঠিক এই কথাই বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অবিলম্বে আনারুলকে গ্রেপ্তারির নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। কিন্তু কে এই আনারুল? কেনই বা তাঁকে কাঠগড়ায় তুললেন মুখ্যমন্ত্রী? তা নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে জোর চর্চা। যদিও রামপুরহাট ১ নং ব্লকের তৃণমূল (TMC) প্রেসিডেন্ট আনারুলের দাবি, তিনি ওই সময় ঘটনাস্থলে ছিলেন না, ছিলেন হাসপাতালে।
রামপুরহাট ১ নং ব্লকের তৃণমূল প্রেসিডেন্ট আনারুল হোসেন
মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পেয়ে এদিন দুপুরেই রামপুরহাটে রামরামপুরে আনারুল হোসেনের প্রাসাদোপম বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। নেতৃত্বে বীরভূমের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ASP) দীপক সরকার। তাঁর বাড়িতে ঢুকে তল্লাশি চালান পুলিশকর্মীরা। বাড়ির মহিলারা জানান, আনারুল বাড়িতে নেই। তবে পুলিশের অনুমান, তিনি বাড়ির মধ্যেই গা ঢাকা দিয়ে রয়েছেন। তা না থাকলেও, যেখান থেকেই হোক, তাঁর হাতকড়া পরিয়ে জেলে ঢোকাতেই হবে। এমনই নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই তাঁর গ্রেপ্তারিতে অতি সক্রিয় পুলিশ। তাঁর বাড়িটি এই মুহূর্তে পুলিশি ঘেরাটোপে। 
রামরামপুরে আনারুল হোসেনের বাড়ি।
 
[আরও পড়ুন: অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের অকাল প্রয়াণে স্তম্ভিত সহকর্মীরা, শোকপ্রকাশ শতাব্দী-লাবণী-দেব-অঙ্কুশদের]
কিন্তু কেন মুখ্যমন্ত্রী সেখানে পা রেখেই দলের স্থানীয় নেতা আনারুলের নাম উল্লেখ করলেন? রামপুরহাট ১ নং ব্লকের তৃণমূল ব্লক সভাপতি  আনারুল। সোমবার রাতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কোনওক্রমে বেঁচে যাওয়া বাসিন্দা মিহিলাল শেখ অভিযোগ তুলেছেন, আনারুলের নেতৃত্বেই সেই রাতে গ্রামে হামলা চলেছিল। এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সামনে কান্নাভেজা গলায় সেদিনের ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে ফের এই নাম উল্লেখ করেছিলেন মিহিলাল। তাতেই কার্যত সিলমোহর দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বললেন, ”আনারুল গ্রেপ্তার হবে।” তারপরই তাঁর বদলে রামপুরহাট ১১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সৈয়দ সিরাজ জিম্মিকে ব্লক সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
[আরও পড়ুন: শিয়ালদহ মেট্রো স্টেশনের বাংলা বোর্ড ভুলে ভরা, চালুর আগে বিতর্ক]
মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের পর অবশ্য আনারুল সংবাদমাধ্যমে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে জানান, তিনি ওইদিন হাসপাতালে ছিলেন। পুলিশ সিসিটিভি ফুটেজ দেখে জানাক, তিনি কোথায় ছিলেন। এ নিয়ে তিনি জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলতে চান। এদিকে, আনারুলের বাড়ি ঘিরে তাঁকে গ্রেপ্তারির তোড়জোড় করতেই তাঁর অনুগামীরা বাড়ির সামনে চলে আসেন। তাঁদের দাবি, আনারুলকে চক্রান্ত করে ফাঁসানো হচ্ছে। একা তিনি নন, গ্রেপ্তার করতে হলে তাঁদেরও করতে হবে। 

Source: Sangbad Pratidin

Related News
সেনায় চার বছরের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ, অবসরের পর স্থায়ী পদে ফিরবেন মাত্র ২৫ শতাংশ

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘টু‌র অফ ডিউটি’ (Tour of Duty) বা অগ্নিপথ প্রকল্পের আওতায় ভারতীয় স্থল সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বায়ুসেনা Read more

ওয়ার্নকে শ্রদ্ধা জানাতে বিশেষ উদ্যোগ, ফাইনালে প্রথম আইপিএলের চ্যাম্পিয়নদের আমন্ত্রণ রাজস্থানের

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আইপিএলের প্রথম বছর ট্রফি জয়। তারপর ১৩ বছরের খরা। ১৩ বছরের অপেক্ষা শেষে অবশেষে দ্বিতীয়বার মেগা Read more

৪ ভারতীয়-সহ ১৯ যাত্রীকে নিয়ে নেপালের মাঝ আকাশে উধাও বিমান

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবার সকালে নেপালের (Nepal)  আকাশ থেকে উধাও হয়ে গেল একটি বিমান। সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটের পর Read more

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা বামপন্থী পরিবারের ছেলে! চাঞ্চল্যকর দাবি সিপিএমের মানিক সরকারের

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা (Manik Saha) বামপন্থী পরিবারের ছেলে। চাঞ্চল্যকর এই দাবি করেছেন সিপিএম (CPIM) পলিটব্যুরো Read more

করোনা কাল কাটিয়ে ২ বছর পর ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে ফের চালু ‘মৈত্রী’ ও ‘বন্ধন’ এক্সপ্রেস

সুকুমার সরকার, ঢাকা: অতিমারী করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) প্রকোপে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল কলকাতা-ঢাকা ‘মৈত্রী এক্সপ্রেস’। বন্ধ ছিল কলকাতা-খুলনার মধ্যে ‘বন্ধন’ এক্সপ্রেসও। Read more

‘ঐক্যেই শক্তি’, হিন্দি বিতর্কের মাঝেই ‘মন কি বাতে’ আঞ্চলিক ভাষায় জোর মোদির

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হিন্দি (Hindi) বনাম আঞ্চলিক ভাষা বিতর্কে সরগরম দেশ। কিছুদিন আগেই নতুন করে দেশের প্রধান ভাষা হিসেবে Read more